Text size A A A
Color C C C C
পাতা

কী সেবা কীভাবে পাবেন

যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের কার্যক্রমঃ-

 

যুব সমাজকে সুশৃঙ্খল ও সুসংগঠিত করে জাতীয় উন্নয়ন প্রক্রিয়ায় সম্পৃক্তকরণ এবং সঠিক দিক-নির্দেশনা জ্ঞান ও দক্ষতা প্রদানের মাধ্যমে মানব সম্পদে পরিণত করার লক্ষ্যে যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরে  নিমণ বর্ণিত কর্মসুচী চালু রয়েছে ।

 

০১। বেকার যুবদের দক্ষতা বৃদ্ধিমূলক কর্মসুচীঃ-

 

 দেশের শিক্ষিত অর্ধ শিক্ষিত বেকার যুবদেরকে দক্ষ জন শক্তিতে রুপামতর করার জন্য বিভিন্ন প্রকারট্রেডে প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয় ।

 

প্রশিক্ষণের ধরণ(ক) প্রাতিষ্ঠানিক প্রশিক্ষণঃ-১মাস হতে ১ বৎসর পর্যমত বিভিন্ন  মেয়াদে প্রায় শতাধিক ট্রেডে প্রশিক্ষন প্রদান করা হয় ।

 

(খ)অ-প্রাতিষ্ঠানিক/ভ্রাম্যমান প্রশিক্ষণঃ- ০৭দিন থেকে ৩০ দিন পর্যমত (এলাকার চাহিদার নিরিখে)যেকোন বিষয়ে প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয় ।

০২।প্রশিক্ষিত যুবদের আত্মকর্মসংস্থান কর্মসুচীঃ

 

-প্রশিক্ষণ পরবর্তী সময়ে বেকার যুবদেরকে আত্মকর্মী হিসাবে গড়ে তোলার জন্য নিয়মিতভাবে মনিটরিং করা হয়।ক্রেডিট সুপারভাইজারগণ প্রশিক্ষিত যুবদের  বাড়ী বাড়ী গিয়ে বিভিন্ন প্রকল্প গ্রহণে উদ্বুদ্ধ করে  থাকেন । প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য =৫,০০০/-টাকা হতে  সর্বোচ্চ =৫০,০০০/- টাকা পর্যমত ঋণ প্রদান করে সহায়তা করা হয়।একজন প্রশিক্ষিত আত্মকর্মী মাসে =১০,০০০/-টাকা হতে =৭০,০০০/-টাকা পর্যস্ত আয় করে থাকেন ।

 

০৩। বে-সরকারীসংগঠনকে সহায়তা প্রদানঃ-

 

বে-সরকারী স্বেচ্ছাসেবী যুব সংগঠন গুলোকে তালিকা ভুক্তির মাধ্যমে যুব কার্যক্রম/সমাজসেবা মূলক উন্নয়ন কর্মকান্ডে উদ্বুদ্ধ করার জন্য অনুদান প্রদান করা হয়ে থাকে।

 

০৪। জাতীয় যুব দিবস পালনঃ-

 

যুবসমাজ সবসময়ই যে কোন দেশের সর্বাপেক্ষা বলিষ্ঠ,আত্মপ্রত্যয়ী,উৎপাদনক্ষম চালিকাশক্তি ও জাতির আশা আকাঙ্খার প্রতিফলন। যুবদের অফুরমত সম্ভবনাকে তাদের নিজেদের জন্য,সমাজের জন্য জাতির জন্য কাজে লাগাতে হবে । যুবদের কর্মস্পৃহা ও কর্ম্মোদ্দীপনার উপর জাতির উন্নতি সর্বতোভাবে নির্ভরশীল । এ জন্য যুবদের সকল শক্তি ও সম্ভবনার বিকাশ ঘটানো এবং সদ্ব্যবহার করা জরুরী।এ বিশ্বাসের ভিত্তিতেই অর্থনৈতিক স্বনির্ভরতা অর্জনে দেশের যুবশক্তিকে মানবসম্পদে পরিণত করে  উন্নয়নের মূল স্রোতধারায় তাদেরকে সম্পৃক্ত করার নিরমতর প্রয়াস অব্যাহত রয়েছে । যুবরা দারিদ্র ও বেকাত্বের বিরুদ্ধে সংগ্রাম করে উন্নয়নের আদর্শ সৃষ্টি করবে । যুবদের মেধা ও শ্রমের পরিপুর্ণ বিকাশ ঘটিয়ে তাদের উদ্যম,উদ্যোগ ও কর্মধারাকে উন্নয়নের পথে ধাবিত করে নতুন শতাব্দীতে আমরা সমৃদ্ধির নতুন দ্বার উন্মোচন করতে চাই । জাতীয় যুব দিবস আয়োজনের আমাদের  প্রত্যাশা ।

 

০৫। ন্যাশনাল সার্ভিস কর্মসুচীঃ-

 

বর্তমান সরকারের নির্বাচনী  প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নের লক্ষ্যে উচ্চ মাধ্যমিক ও তদুর্ধ্ব পর্যায়ের শিক্ষায় শিক্ষিত অগ্রহী বেকার যুবক/যুবমহিলাদের  জাতি গঠনমূলক কর্মকান্ডে সম্পৃক্তকরণের মাধ্যমে দুই বছরের জন্য অস্থায়ী কর্মসংস্থান সৃষ্টির লক্ষ্যে ন্যাশনাল সার্ভিসকর্মসুচী চালু করা হয়েছে । এ কর্মসুচীর আওতায় ২৪-৩৫ বছর বয়সী উচ্চ মাধ্যমিক ও তদুর্ধ্ব পর্যায়ের শিক্ষাগত যোগ্যতা সম্পন্ন আগ্রহী বেকার যুবক/যুবমহিলাদের দশটি সুনির্দিষ্ট মডিউলে তিন মাস মেয়াদী মৌলিক প্রশিক্ষণ প্রদানের পর জাতি গঠনমুলক কর্মকান্ডে সম্পৃক্তকরণের মাধ্যমে অস্থায়ী কর্মসংস্থান সৃষ্টি করা হচ্ছে । প্রশিক্ষণ চলাকালীন সময়ে প্রত্যেক প্রশিক্ষণার্থী দৈনিক ১০০টাকা হারে প্রশিক্ষণ ভাতা এবং প্রশিক্ষণোত্তর অস্থা্য়ী কর্মসংস্থানে নিয়োজিত হওয়ার পর দৈনিক ২০০টাকা হারে কর্ম ভাতা পাবে । ন্যাশনাল সার্ভিসে সংযুক্তির মেয়াদকাল সবেবার্চ ২(দুই)বছর হবে । তবে এই নিয়োগ সরকারী চাকুরি পাওয়ার নিশ্চয়তা প্রদান করবে না । ২(দুই)বছর পুর্তির পুর্বে কেউ অনত্র চাকুরিতে যোগদানের সুযোগ পেলে কর্মসুচী হতে অব্যাহতি নিতে পারবে । কর্মের স্বীকৃতিস্বরুপ যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর ন্যাশনাল সার্ভিস সম্পন্নকারী যুবক/যুবমহিলাদেরকে অভিজ্ঞতার সনদপত্র প্রদান করা হবে ।